করোনায় বাজারে এলো রুপার মাস্ক, চাহিদা তুঙ্গে

|

করোনায় বাজারে এলো রুপার মাস্ক, চাহিদা তুঙ্গে

করোনায় বাজারে এলো রুপার মাস্ক

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আতঙ্কিত পুরো বিশ্ব। মাস্ক, গ্লাভস, স্যানিটাইজারই একমাত্র উপায় এ থেকে বাঁচার। আর এই সময়ে যারা সাত পাকে বাঁধা পরছেন তাদের বিয়েতে পানপাতা দিয়ে চোখ না ঢাকতে পারলেও মাস্ক দিয়ে মুখ ঢাকা চাই-ই-চাই। এটিই যেন বর্তমানের অন্যতম রীতি। এছাড়া বিয়েতে যে সে মাস্ক পরে বসে পড়লেই হল না। এও তো এখন অলঙ্কার তুল্যই। ঠিক এই কথা মাথায় রেখেই রুপার মাস্ক তৈরি করেছেন এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী। খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

স্বর্ণব্যবসায়ী সন্দীপ সাগাওকরের কর্ণাটক মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী বেলগাম জেলায় একটি গয়নার দোকান রয়েছে। লকডাউনে বেড়ে চলেছে সোনার মূল্য। এছাড়া সব কিছু বন্ধ থাকায় বিক্রি একপ্রকার শিকেয় উঠেছে। এই অবস্থায় ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই অভিনব পন্থা অবলম্বন করেন এই ব্যবসায়ী।

সন্দীপ জানান, করোনাভাইরাসের রাজত্বে সবচেয়ে বেশি চাহিদা মাস্কের। তাই রুপা দিয়েই তৈরি করি মাস্ক। অন্য মাস্কের মতোই কানের দু’দিকে ইলাস্টিক দেয়া। আর মুখ ঢাকা থাকবে রুপোর আস্তরণে। তাতে আবার বাহারি নকশাও করা। তিনি আরও বলেন, “অন্য ব্যবসার মতোই করোনার জেরে আমার ব্যবসাও জোর ধাক্কা খেয়েছে। তারপরই রুপার মাস্ক বানানোর ব্যাপারটা মাথায় এল। ফলও মিলল হাতেনাতে। দারুণ চাহিদা। অনেক অর্ডার পাচ্ছি। এই মাস্কের জন্য দুই দিন আগে অর্ডার দিলেই চলবে।”

জানা যায়, এই মাস্কের ওজন ২৫ থেকে ৩৫ গ্রাম। আর মূল্য আড়াই থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা। একটি এন-৯৫ মাস্ক কিনতেও প্রায় এমনই খরচ। সুতরাং বিয়ে উপলক্ষে এমন মাস্কের চাহিদা ঠিক কতখানি, তা আন্দাজ করাই যায়।









Leave a reply