খালেদার নিঃশর্ত মুক্তি দাবিতে সারাদেশে বিএনপির বিক্ষোভ

|

খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি। রাজধানীতে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম থেকে জুমার নামাজ শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলে হাজার হাজার নেতাকর্মী যোগ দেন। এসময় দলের নেতাকর্মীরা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন।  পুরো মিছিল ঘিরেই ছিলো পুলিশের কড়া নজরদারি। একপর্যায়ে নয়াপল্টনের আগে পুলিশ মিছিলে ধাওয়া দিলে কিছুটা ছত্রভঙ্গ হয় সেটি। সেখান থেকে কয়েকজন কর্মীকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে সকালে দলীয় কার্যালয়ের দিকে যেতে চাইলে বগুড়া শহরের নবাববাড়ী এলাকায় নেতাকর্মীদের বাধা দেয় পুলিশ। একপর্যায়ে চলে লাঠিচার্জ। পরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন।

রাজশাহী নগরীর বিএনপি কার্যালয় থেকে মিছিল বের করার চেষ্টা করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। তবে, পুলিশ তাদের রাস্তায় নামতে দেয়নি। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করে তারা। খালেদা জিয়ার রায়কে প্রতিহিংসামূলক বলে উল্লেখ বক্তারা।

টাঙ্গাইল জেলা বিএনপি কার্যালয় থেকে মিছিল বের করার চেষ্টা করে নেতাকর্মীরা। এসময় বাধা দেয় পুলিশ। পরে কার্যালয়ের সামনেই সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে তারা। খালেদা জিয়ার রায়কে প্রহসন উল্লেখ বিএনপি নেতারা সরকারের কঠোর সমালোচনা করেন।

ময়মনসিংহে জুমার নামাজের পর বাউন্ডারি রোড এলাকায় মিছেল প্রস্তুতির সময় বাধঅ দেয় পুলিশ। এসময় ময়মনসিং জেলা বিএসপির সাধারন সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যাবার সময় আরো সাত জনকে আটক করা হয়। যে কোন অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি রোধে ময়মনসিংহ শহরে মোড়ে মোড়ে পুলিশি নরিাপত্বা বাড়ানো হয়েছে।

বরিশালেও সমাবেশ করে মহানগর ও জেলা বিএনপি। তারা অবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন। না হলে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারিও দেন নেতৃবৃন্দ।









Leave a reply