বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নামে ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে পণ্য খালাসের চেষ্টা!

|

মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য আমদানির পর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পণ্য খালাসের চেষ্টা করেছে সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র। উপ সচিবের স্বাক্ষর জালিয়াতি করে মন্ত্রণালয়ের ভুয়া ক্লিয়ারেন্স পারমিট তথা ছাড়পত্র তৈরি করে চক্রটি। তবে চালান খালাসের আগেই চট্টগ্রাম কাস্টম কর্তৃপক্ষের হাতে ধরা পড়ে নজিরবিহীন এই জালিয়াতি।

ঘোষণা ছিলো মালয়েশিয়া থেকে আসবে চীনাবাদাম ও অলিভ। কিন্তু চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনার খুলে পাওয়া যায় শিশুখাদ্য, গুঁড়োদুধ। চালানটির আমদানিকারক ঢাকার চকবাজারের সিয়াম এন্টারপ্রাইজ। শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটিকে ৭৬ লাখ টাকা জরিমানার পাশাপাশি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ছাড়পত্র আনার নির্দেশ দেয় চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস।

এরপরই শুরু জালিয়াতির, প্রথমে উপ সচিবের স্বাক্ষর জালিয়াতি করে দুটি ভুয়া ছাড়পত্র জমা দেয় আমদানিকারক। নিয়ম অনুযায়ী যা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে থাকার কথা। চক্রটি এবার মন্ত্রণালয়ের ভুয়া ওয়েবসাইটও তৈরি করে, যাতে ভুয়া ছাড়পত্র দুটি পাওয়া যায়। কিন্তু ঠিক ওই সময় চালানটি না ছাড়তে মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি আসলে সংশয়ে পড়ে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। যোগাযোগ করে নিশ্চিত হন আগের ছাড়পত্র দুটি ভুয়া। এ চক্রটি এমন আরও জালিয়াতি করতে পারে বলে সন্দেহ কাস্টমস কর্মকর্তাদের।

চালানটি খালাসের দায়িত্বে ছিলো সিএন্ডএফ এজেন্ট খান এন্টারপ্রাইজ। আগ্রাবাদ প্রগ্রেসিভ টাওয়ারের ঠিকানা ব্যবহার করলেও সেখানে গিয়ে দেখা যায় তাও ভুয়া। কয়েক লাখ টাকা ভাড়া বকেয়া রেখে ৪ বছর আগেই পালিয়েছেন সবাই। নজিরবিহীন জালিয়াতি দেখে বিস্মিত আমদানি রফতানির সাথে জড়িত সংগঠনের নেতারা।

ইউএইচ/









Leave a reply