অাসামির ‘কাঠগড়ায়’ শামি, কেন?

|

ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলে পেসার মোহাম্মদ শামির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ উঠেছে। এবার ওই অভিযোগ একসাথে করে থানায় গিয়ে শামির বিরুদ্ধের অভিযোগ দায়ের করেছেন, তার স্ত্রী হাসিন জাহান।

বৃহস্পতিবার ইন্ডিয়া টিভিকে হাসিন বললেন, ‘শামিকে বিয়ে করার পরই আমি মডেলিং ও চাকুরি ছেড়ে দিয়েছিলা। গত দুই বছর আমাকে যেভাবে খুশি শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেছে। আমাকে ডিভোর্সের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করে। সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানে কখনোই স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি সে। এখন সে কোহলির মতো বলিউডের মতো কোনো সুন্দরীকে বিয়ে করতে চায়”

এর আগে তিনি দাবি করেছিলেন, পাকিস্তানের কোনো এক নারীর সঙ্গেও তাঁর সম্পর্ক রয়েছে। এছাড়া, আরও একাধিক মেয়ের সঙ্গে শামির বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্ক রয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন হাসিন।

আইপিএল-এ কলকাতা নাইট রাইডার্সের চিয়ার লিডার থাকাকালীন শামির সঙ্গে পরিচয় ঘটেছিল শামির। চার বছর আগে ২০১৪ সালে তারা বিয়ে করেন। তাদের একটি সন্তানও রয়েছে।

শামির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ বলেই চলেছেন হাসিন, এবং আর এর সঙ্গে সবার সামনে চলে আসছে ভারতীয় এই পেসারের ব্যক্তিগত জীবনের বিস্ফোরক সব তথ্য।

গণ মাধ্যমকে হাসিন বলেছেন, শামি একটা দু’মুখো মানুষ। ৫ বছর অবধি অন্য কারও সঙ্গে সম্পর্কে জড়িত ছিল, এবং এ বিষয়ে বিয়ের আগে আমাকে সে মিথ্যে বলেছে। আমাদের বিয়ের আগে তুবা নামের মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার বিষয়টি সে আমাকে জানায়নি।

গণ মাধ্যমের পর দাফতরিকভাবে কলকাতা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন হাসিন। যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) প্রবীণ ত্রিপাঠী জানান, এফআইআর হিসেবে এটি বিবেচিত হবে। সামির বিরুদ্ধে ৩০৭, ৩৭৬, ৩২৮ ও ৪৯৮এ-র মত জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগপত্রে হাসিন দাবি করেন, “শামির সঙ্গে গত ৭ ডিসেম্বর উত্তর প্রদেশে অবস্থিত তার গ্রামের বাড়িতে যাই। ওখানে সে তার দাদার সঙ্গে দাদার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক তৈরিতে জবরদস্তি করেছিল। খাবারে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে আমাকে মারার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু ভাগ্যের সহায়তায় প্রাণ বাঁচিয়ে কলকাতায় ফিরি।”

শামির বিরুদ্ধে অভিযোগের ফিরিস্তি এখানেই শেষ নয়। শামির স্ত্রী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, “তার সঙ্গে উত্তর প্রদেশে গেলে আমাকে খুন করে দেহটা জঙ্গলে পুঁতে রাখার জন্য সে তার ভাইকে বলেছিল।”

মোহাম্মদ শামির জন্ম উত্তর প্রদেশে হলেও তিনি পশ্চিম বঙ্গে হয়ে ভারতে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে থাকেন।  এ দিকে স্ত্রী করা অভিযোগে পরিপ্রেক্ষিতে সদ্য ঘোষিত ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তির সাত কোটি রুপির এ প্লাস ক্যাটাগরি তেকে বাদ পড়েছেন তিনি।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডেও (বিসিসিআই) এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছে বলে হাসিন জানিছেন। তিনি জানান, আমার আইনজীবির কাছে বোর্ড এ ব্যাপারে জানতে চেয়েছে। আমি বোর্ডকেও লিখিত অভিযোগ জানাতে চাই।

তবে স্ত্রী সকল অভিযোগ প্রত্যাখান করেছেন মোহাম্মদ শামি। তার দাবি, তার স্ত্রী মানসিক ভারসাম্যহীন। ক্যারিয়ার ধ্বংসে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply