কাতারের প্রতি সহানুভূতি: জার্মানির সাথে অস্ত্র চুক্তি করছে না সৌদি

|

কাতারের ওপর সৌদি আরব ও তার মিত্র চার দেশের অবরোধ চলছে প্রায় এক বছর ধরে। ইরান ও ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস এবং মিশরের মুসলিম ব্রাদারহুডের সাথে কাতারি রাজপরিবারের দহরম মহরমের কারণেই মূলত দেশটির ওপর ক্ষেপা সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুই রাজপরিবার।

গত প্রায় এক বছর ধরে বিভিন্ন দেশ মধ্যস্থতার চেষ্টা করেও সৌদি পক্ষকে নমনীয় করতে পারেনি। তবে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান নমনীয় না হলেও পশ্চিমা অনেক দেশ কাতারের প্রতি অবরোধের শুরু থেকেই সহানুভূতিশীল। জার্মানিও অবরোধ ইস্যুতে কাতারের পক্ষে একাধিকবার বিবৃতি দিয়েছিলো।

গত বছর জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গেব্রিয়েল বলেছিলেন, কাতারের ওপর অবরোধ আরোপ উপসাগরীয় অঞ্চলে যুদ্ধের হুমকি তৈরি করতে পারে। বার্লিনের এসব বক্তব্য ভালোভাবে নেয়নি রিয়াদ। এর ফল স্বরূপ সৌদিতে জার্মান রপ্তানি গত এক বছরে কমে ২৮ শতাংশ থেকে ৯ শতাংশে নেমেছে।

সম্প্রতি জার্মান পত্রিকা ডয়চে ভেলে এক রিপোর্টে জানিয়েছে, জার্মানি থেকে এতদিন উল্লেখযোগ্য পরিমাণ অস্ত্র কিনলেনও এখন নতুন একটি চুক্তিতে সই করতে আগ্রহ দেখাচ্ছে না রিয়াদ।

ডয়চে ভেলের রিপোর্টে আরও বলা হয়, বছর দেড়েক আগে তৎকালীন উপ-যুবরাজ বিন সালমান তার চাচাতো ভাইন মোহাম্মদ বিন সালমানকে হটিয়ে যুবরাজ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই জার্মানির সাথে নতুন করে বাণিজ্য বাড়ছে না। বরং আগে থেকে চলমান সৌদিতে জার্মান রফতানি প্রায় তিন ভাগের এক ভাগে নিমে এসেছে।









Leave a reply