অজ্ঞান করে পল্লী চিকিৎসকের অপারেশন, যুবকের মৃত্যু

|

মেহেরপুর প্রতিনিধি

মেহেরপুরে পল্লী চিকিৎসকের ভুল অপারেশনে সাইদুল ইসলাম (১৭) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সদর উপজেলার আলমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সাইদুল ইসলাম গাংনী উপজেলার গাড়াডোব গ্রামের সানোয়ার হোসেনের ছেলে। এ ঘটনার পর থেকে পল্লী চিকিৎসক আলমপুর গ্রামের ফকরুজ্জামান ফুকু ও তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক রয়েছে।

সকালে মায়ের সাথে ২০টি টাকা নিয়ে পার্শ্ববর্তী গ্রাম আলমপুরে নাকে পলিপাসের চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন সাইদুল ইসলাম। মা তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন বাবা বিশ টাকায় চিকিৎসা করে বাড়ি ফিরে আসতে পারবে তো? মায়ের সে জিজ্ঞাসার উত্তর মিলেছে সাইদুর রহমানের লাশ হয়ে বাড়ি ফেরাতে। বৃহস্পতিবার সকালে আলমপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক ফকরুজ্জামান ফুকু তার নাকে একটি ভুল অপারেশন করে সাইদুলের জীবন প্রদীপ নিভিয়ে দেয়।

পল্লী চিকিৎসক ফকরুজ্জামান তার নিজ চেম্বারে সাইদুল কে অজ্ঞান করে নাকের পলিপাস অপারেশন করে। এ সময় নাকে অস্ত্রপচারের পর নাক দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকে। দীর্ঘ সময় তার জ্ঞান না ফিরলে পরিবারের লোকজনকে ডেকে একটি এ্যাম্বুলেন্সে করে দ্রুত মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের চিকিৎসক পরীক্ষা নিরিক্ষা করে সাইদুলকে মৃত্যু ঘোষণা করার সাথে সাথে হাসপাতাল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায় হাতুড়ে ফকরুজ্জামান ফুকু।

অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি ডাক্তারের।

এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। এলাকার সকল মানুষ ভূয়া সনদবিহীন ডাক্তারের দৃষ্টান্ত দাবি করেছে সাইদুলের পারিবার সহ এলাকাবাসি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মেহেরপুর সদর থানার ওসি রবিউল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। আমরা ওই হাতুড়ে ডাক্তারকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছি। শীঘ্রই তাকে আইনের আওতায় সোপর্দ করা হবে।









Leave a reply