ভয়াবহ স্মৃতি সঙ্গী করেই ১১০ বছর পর যাত্রা শুরু করছে টাইটানিক ২

|

না। ২০১৮ নয়। যাত্রা শুরু করবে ২০২২ সালে। যাবে সেই একই পথ ধরে। শুরু আর শেষের গন্তব্যও থাকবে একই। একটি প্রেস রিলিজের মাধ্যমে বহু প্রতীক্ষিত টাইটানিক ২ জাহাজের ব্যাপারে জানিয়ে দেওয়া হল ব্লু স্টার লাইন সংস্থার পক্ষ থেকে।

সংস্থার চেয়ারম্যান ক্লিভ পালমার একটি বিবৃতি দিয়ে বলেন, ঐতিহাসিক জাহাজ টাইটানিকের রেপলিকা টাইটানিক ২। এই জাহাজটিরও প্রথম যাত্রা পথ হবে টাইটানিকের মতোই। যাত্রা শুরু হবে ইংল্যন্ডের সাউথহ্যাম্পটন থেকে। পৌঁছবে নিউইয়র্ক শহরে। তিনিও থাকবেন সেই যাত্রায়, মানুষকে উৎসাহিত করার জন্য। শান্তির বার্তা বহন করবে এই জাহাজ। মানুষের সঙ্গে মানুষের মিলনের একটা জায়গা।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই রেপলিকা জাহাজটিও প্রথম জাহাজটির অনুকরণে বানানো হচ্ছে। এর পরিকাঠামো, নকশা হুবহু এক রাখা হচ্ছে। এমনকী লাইফ বোটগুলিও হবহু একই রকম দেখতে বানানো হচ্ছে। তবে প্রযুক্তিগত দিক থেকে যাবতীয় সব কিছুই থাকবে এক্কেবারে আধুনিক ও অত্যাধুনিক। তা সে ছোটো লাইফ বোটই হোক বা মূল জাহাজের যে কোনো বিষয়ই হোক।

প্রসঙ্গত, সকলেই জানে যে, টাইটানিক জাহাজটি ১৯১২ সালে তার প্রথম যাত্রা পথে অ্যাটল্যান্টিক মহাসাগরের ওপর ভাসমান একটি হিমশৈলে ধাক্কা লেগে ডুবে গিয়েছিল। তাতে প্রাণ গিয়েছিল যাত্রী আর নাবিক মিলিয়ে অনেক মানুষের।

তবে হ্যাঁ, রেপলিকা জাহাজে বিপদ এড়াতে থাকবে প্রচুর লাইফ বোটের ব্যবস্থা। একটির সঙ্গে আর একটি অংশ সংযুক্ত করতে এ বারে আর ব্যবহার করা হবে না রিপিড। সব ক’টি অংশ করা থাকবে ঢালাই। জাহাজের কাঠামো, র‍্যাডার, নেভিগেশন ব্যবস্থা সবটাই হবে অত্যাধুনিক।

আপনি কী এই জাহাজের যাত্রী হতে চান? তাহলে জেনে রাখুন, কাটতে পারবেন প্রথম, দ্বিতীয় আর তৃতীয় শ্রেণীর টিকিট। আর তিন তলা এই জাহাজে মোট ন’টি ডেক থাকবে। তাতে থাকবে মোট ৮৩৫টি কেবিন। যেমনটি ঐতিহাসিক টাইটানিকে ছিল, ঠিক তেমনটি। আর আসন সংখ্যা ২৪৩৫।

তা হলে ২০২২ আসতে তো আর বেশি দেরি নেই। হতে চলেছে আরও একটি ঐতিহাসিক যাত্রা। অপেক্ষা আর মাত্র ক’টা বছর!









Leave a reply