ব্যাক টু ব্যাক ফিফটি মিঠুনের

|

টপ অর্ডারের ব্যর্থতায় আবারও দাঁড়িয়ে যান মোহাম্মদ মিঠুন। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে হাফসেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। যদিও ফিফটির পর বেশিদূর যেতে পারেননি। তার আউটে ক্রাইস্টচার্চের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের স্কোর ৩৬ ওভারে ৬ উইকেটে ১৭৬ রান।

নেপিয়ারের ম্যাচে তার ব্যাটেই কিছুটা হলেও লড়াই করার মতো স্কোর গড়েছিল বাংলাদেশ। তাতে ব্যাটিং লজ্জা থেকেও রক্ষা পায় সফরকারীরা। ক্রাইস্টচার্চের ম্যাচেও যখন টপ অর্ডারে একই ব্যর্থতার চিত্র, তখন আরেকবার জ্বলে ওঠে মিঠুনের ব্যাট।

চমৎকার ব্যাটিংয়ে তিনি পূরণ করেন টানা দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি। যদিও ইনিংসটা আর বেশি লম্বা করতে পারেননি। টড অ্যাস্টলের বলে আউট হওয়ার আগে করেন ৫৭ রান। ৬৯ বলের ইনিংসটি তিনি সাজান ৭ চার ও ১ ছক্কায়।

এর আগে শনিবার টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে স্কোর বোর্ডে মাত্র ১৬ রান জমা করতেই সাজঘরে দুই ওপেনার লিটন কুমার দাস ও তামিম ইকবাল। ১ ও ৫ রানে ট্রেন্ট বোল্ট ও ম্যাট হেনরির শিকার হন লিটন-তামিম। রিভিউ নিয়েও এলবিডব্লিউর সিদ্ধান্ত বদলাতে পারেননি তামিম।

১৬ রানে দুই ওপেনারের বিদায়ের পর দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে পারেননি সৌম্য সরকার। উইকেটে সেট হয়েও নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি জাতীয় দলের এই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান। আগের ম্যাচে ৩০ রান করা সৌম্য, দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ফেরেন ২৩ বলে ২২ রান করে।

ভাগ্য কাজে লাগাতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। একাধিকবার ক্যাচ তুলে লাইফ পাওয়া এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান শেষ পর্যন্ত ৩৬ কলে ২৪ রানে বোল্ড হন। অবশ্য ব্যক্তিগত ৫ রানে টড অ্যাস্টেলের কল্যাণে রক্ষা পান মুশফিক। এরপর ১৫ রানে উইকেটের পেছনে রস টেইলের হাতে ক্যাচ তুলে দেন। কিন্তু তিনবারের চেষ্টায়ও ক্যাচটি তালুবন্ধি করতে পারেননি টেইলর।

অবশেষে ফার্গুনসনের আউট সাইড বলে ইনসাইড এজ হয়ে বল স্ট্যাম্পে। বোল্ড হয়ে সাজঘরে মুশফিক। তার আগে ৩৬ বলে ২৪ রান করেন।

এরপর উইকেটে নেমে মাত্র ৭ রানে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।









Leave a reply