নিউইয়র্কে হামলাকারীর মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত: ট্রাম্প

|

নিউইয়র্কে পিকআপ ট্রাক চালিয়ে ৮ জনকে হত্যার ঘটনার পর অভিবাসীবিরোধী এজেন্ডা নিয়ে নড়েচড়ে বসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই সাথে আক্রমণ করেছেন মার্কিন বিচার ব্যবস্থাকেও।

বুধবার এক টুইটে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থাকে হাস্যকর ও রীতিমতো ভাঁড়ামি বলে অভিহিত করেন তিনি। একই সাথে বলেন, নিউইয়র্কে হামলাকারী সাইফুল্লো সাইপভকে গুয়ানতানামো কারাগারে পাঠানো উচিত। কিছুক্ষণ পর আরো কড়া মন্তব্য করেন তিনি। নতুন এক টুইট বার্তায় দাবি করেন, নিউইয়র্কের হামলাকারীকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া উচিত। বিচারাধীন অবস্থায় থাকা চাঞ্চল্যকর সন্ত্রাসী হামলা সম্পর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্য নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে। এদিকে আরেক টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, নিউইয়র্কের ঘটনায় আর্জেন্টিনার ৫ নাগরিক নিহত হওয়া সেই দেশের প্রেসিডেন্ট মারিশিও মাকরিকে ফোন করে সান্ত্বনা জানিয়েছেন তিনি। তবে এর জবাবে আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্টের কোন ফোন কল তিনি পাননি।

 

এদিকে, ট্রাক হামলার দায়ে সন্ত্রাসবাদের মামলা দায়ের করা হলো উজবেক নাগরিক সাইফুল্লো সাইপভের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে আইএসকে সহায়তার অভিযোগও আনা হয়েছে। জবানবন্দিতে, আইএসের ভাবাদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়েই হামলার কথা স্বীকার করেন সাইফুল্লো। হামলায় জড়িত সন্দেহে আরেক উজবেক ৩২ বছর বয়সী কাদিরভকে খুজছে পুলিশ।

নিউইয়র্কের ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি জন এইচ কিম জানান,  সাইফুল্লোর ফোন থেকে আইএসের বিভিন্ন প্রচারণার ৯০টি ভিডিও জব্দ করেছে পুলিশ। দুই মাস ধরেই এ হামলার পরিকল্পনা করে সে। এতে আর কারা জড়িত তা জানতে তদন্ত চলছে।

গেল মঙ্গলবার, নাইন ইলেভেনের পর বর্বর হামলার শিকার হয় নিউইয়র্ক। হামলাকারী সাইফুল্লো ম্যানহাটনে সাইকেল চালানোর পথে ট্রাক তুলে দিয়ে ৮ জনকে হত্যা করে।









Leave a reply