নববধূকে সিগারেটের আগুনে ছ্যাঁকা; হাসপাতালে ভর্তি

|

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের বাসাইলে সজিব মিয়া (২২) নামের এক স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে সিগারেটের আগুনে ছ্যাঁকা দিয়ে দগ্ধ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। ওই দগ্ধ নারীকে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত সজিব উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের আদাজান গ্রামের আজিজুল ইসলামের ছেলে। ওই নববধূ টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নের খুদ্দী জুগনী এলাকার আবুল হোসেনের মেয়ে খাদিজা আক্তার (১৮)।

খাদিজার বাবা আবুল হোসেন বলেন, ‘২২দিন আগে সজিবের সঙ্গে খাদিজার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই সজিব ও খাদিজার মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। বিভিন্ন সময় খাদিজার স্বামী যৌতুকের দাবীতে তাকে মারধর করত। এরপর মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রাতে খাদিজাকে হাত-পা বেঁধে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে সিগারেট দিয়ে আগুনে ছ্যাঁকা দেয়।

পরে বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকালে বিষয়টি আমাকে জানালে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসি। মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আগুনে দগ্ধ হওয়ায় কান্নাকাটি করছিল। পরে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছি।’ প্রায় দুই বছর আগে খাদিজার আরেকটি বিয়ে হয়েছিল। এটি খাদিজার দ্বিতীয় বিয়ে।

সজিবের স্বজনরা জানান, সজিব ও খাদিজার মধ্যে কোনও সমস্যা ছিল না। ভালোভাবেই তাদের সংসার চলছিল। পরে বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকালে খাদিজার বাবা ও দাদাকে দাওয়াত দিয়ে আনা হয়। পরে ভালোভাবেই খাদিজা তার বাবার বাড়িতে যায়।

এ ব্যাপারে বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম তুহীন আলী বলেন, ‘এঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাতে মামলা হয়েছে। পরে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।’









Leave a reply