ছেলেধরা সন্দেহে মানসিক ভারসাম্যহীন নারীকে পিটিয়ে জখম!

|

সাতক্ষীরার দেবহাটায় ‌’ছেলেধরা রোহিঙ্গা’ সন্দেহে এক মানসিক ভারসাম্যহীন বয়স্ক মহিলাকে পিটিয়ে জখম করেছে এলাকাবাসী। খবর পেয়ে পুলিশ ওই মহিলাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে।

আজ শুক্রবার দুপুরে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়ায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সাতক্ষীরা জেলা জুড়ে চলমান ছেলেধরা আতঙ্কে যখন গোটা জনপদের মানুষের মাঝে অজানা আতঙ্ক বিরাজ করছে, ঠিক তখনই পারুলিয়ার কদবেলতলা এলাকায় এক বয়স্ক নারীকে ঘোরাফেরা করতে দেখে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে এলাকাবাসী।

এসময় ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে এলাকার পুরুষ-মহিলারা মিলে গণপিটুনি দিয়ে জখম করে। পরে খবর পেয়ে দেবহাটা থানা পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে।

দেবহাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, এলাকাবাসী যাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে তিনি আসলে একজন মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা। তিনি কিছুই বলতে পারছে না। এই মহিলা কোন ছেলেধরা বা রোহিঙ্গা না। তার ঠিকানা বলতে পারছেনা। আমরা তার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা করছি।

এদিকে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের ফেসবুক পেজে এ ব্যাপারে সকলকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়ে বলা হয়েছে, ‘সাতক্ষীরা জেলায় বাচ্চা ধরার যে গুজব স্যোসাল মিডিয়ায় প্রকাশ করা হচ্ছে এর বস্তুনিষ্ঠ কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় আছে।’









Leave a reply