যুবককে পিটিয়ে হত্যার সময় ‘সেলফি উৎসব’

|

এক আদিবাসী যুবককে চোর সন্দেহে নির্মমভাবে পেটানো হচ্ছিল। আর ওই সময় তার সাথে হাসিমুখে সেলফি তোলার উৎসবে মেতেছিলো অনেকে। গণপিটুনির পর হাসপাতালে যুবকটির মৃত্যু হয়েছে।

মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কেরালা রাজ্যে। গণপিটুনির সময় তোলা সেলফি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, কেরালার পালাক্কাড় জেলার আত্তাপাদি এলাকায় চোর সন্দেহে আদিবাসি যুবক মধুকে (২৭) বন থেকে তুলে নিয়ে পেটাচ্ছিল কিছু স্থানীয় গাড়িচালক। আহত অবস্থায় হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার মধু মারা গেছেন।

এর আগে নিজের গ্রাম থেকে মধুকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল স্থানীয় বাজারে। সেখানে যখন তাকে লাঠি দিয়ে পেটানো হচ্ছিল তখন কেউ তাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসেনি। উল্টো তার মর্মান্তিক অবস্থাকে ‘মজা করার উপলক্ষ’ হিসেবে নিয়েছিলেন অনেকে। তাই মধু যখন মার খাচ্ছিলেন তখন তাকে মোবাইল ক্যামেরার ফ্রেমে রেখে হাসিমুখে সেলফি উঠাচ্ছিলেন অনেক যুবক!

গণপিটুনির পর এক পর্যায়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। থানায় যাওয়ার সময়ই মধু পুলিশের গাড়িতে বমি করতে শুরু করেন। পরে পুলিশ নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে মধুর মা সন্তানের লাশ গ্রহণে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। বিলাপ করে তার সময় কাটছে। পুলিশকে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, দোষীরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত তিনি ছেলের লাশ নেবেন না।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা টি কে সুব্রামানিয়ান বলেন, ‘মধুকে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। তবে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে।’









Leave a reply