‘ওবায়দুল কাদের বেশি কথা বললেও মাঝে মাঝে সত্য বলেন’

|

অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে খালেদা জিয়াকে কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। এমন অভিযোগ করেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ অভিযোগ করেন।

স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভায় খন্দকার মোশাররফ বলেন, নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করেন। এমন নজির আছে। ওবায়দুল কাদের বলেছেন নজির নেই। এটা মিথ্যা কথা। ওবায়দুল কাদের বেশি কথা বলেন। আবার মাঝে মাঝে সত্য কথা বলেন। আবার মানুষকে বিভ্রান্ত করেন। যেমন তিনি বলেন নির্বাচনে জয়লাভ এখন সময়ের ব্যাপার। এটাই সত্য। তবে তা হবে সাজানো নির্বাচন হবে। দু:খ হয় ঢাবির মুহসীন হলে ওবায়দুল কাদেরকে আমি রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করি।

তিনি বলেন, অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে খালেদা জিয়াকে কারারুদ্ধ করে রেখেছে। আওয়ামী লীগ নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের ঠিকাদার মনে করে। তারা ২৫ মার্চ গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায় করতে পারেনি। তবে তারা আন্তর্জাতিক কুখ্যাতি এনেছে। ৫টি স্বৈরাচারি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের তালিকায় তুলেছে। এটা মুক্তিযুদ্ধের মুল চেতনা নয়। মূল চেতনা ছিল গণতন্ত্র।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ৭ মার্চ লোক ভাড়া করে জনসভা করে আওয়ামী লীগ। আর এই দল স্বৈরাচার এরশাদকে জনসভা করতে দেয়। এক স্বৈরাচারিনী আরেক স্বৈরাচারকে সমাবেশ করতে সহায়তা করেছে। আর বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেয় না। আমরা নাকি সন্ত্রাস করি। বিএনপির সমাবেশ মানে জনসমুদ্র। সেটা ভয় পায় বলেই বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেয়া হয় না। এটা কেমন গণতন্ত্র?। বিচার বিভাগ, প্রশাসনে চলছে দলীয় নিয়ন্ত্রণ, সংসদে আছে তামাশার বিরোধী দল।

তিনি আরও বলেন, জরিপের ভিত্তি আছে বলেই জার্মানির সংস্থা বাংলাদেশকে স্বৈরাচারি রাষ্ট্র বলেছে। শেখ হাসিনা হিটলারকে হার মানিয়েছেন। হিটলারকে শেখ হাসিনার কাছ থেকে স্বৈরতন্ত্র শিখতে হবে।









Leave a reply