৬০ রুশ কূটনীতিককে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার

|

যুক্তরাজ্যে রাশিয়ার গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপালকে হত্যাচেষ্টার জেরে রাশিয়ার ৬০ কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই আদেশ দেন। কূটনীতিকদের বহিষ্কারের পাশাপাশি রুশ কনস্যুলেট বন্ধেরও নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। (সূত্র: বিবিসি)। এর আগে, এ ঘটনায় রাশিয়ার ২০ কূটনীতিককে বহিস্কার করেছিল যুক্তরাজ্য।

বহিষ্কৃত ৬০ কূটনীতিকের মধ্যে ৪৮ জন রাশিয়া দূতাবাসে এবং বাকি ১২ জন নিউইয়র্কে জাতিসংঘ দফতরে কর্মরত আছেন। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তাদের যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে যেতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ৪ মার্চ রুশ বাহিনীর ব্যবহৃত বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহার করে এক ব্রিটিশ নাগরিক ও তার মেয়েকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে। আমাদের মিত্রদেশ যুক্তরাজ্যে এই হামলা অসংখ্য নিরপরাধ মানুষের জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলেছে। এতে এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

এদিকে, জার্মানি এবং ফ্রান্সও ৪ জন করে রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে। লিথুয়ানিয়া, লাটভিয়া, এস্তোনিয়া, চেক রিপাবলিকের মতো আরও কয়েকটি ইউরোপীয় দেশও এমন পদক্ষেপ নিতে পারে।

ব্রিটেনের স্যালিসবারি শহরের একটি বেঞ্চের ওপর গত ৪ মার্চ স্ক্রিপাল ও তার ৩৩ বছর বয়সি মেয়েকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পাওয়া যায়। ব্রিটিশ সরকার দাবি করেছে, রাশিয়ায় তৈরি নার্ভ গ্যাস নোভিচক দিয়ে স্ক্রিপলের ওপর হামলা করা হয়েছে। লন্ডন সরাসরি এ ঘটনার জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছে। তবে লন্ডনের এ অভিযোগকে রাশিয়া হাস্যকর বলে উড়িয়ে দিয়েছে মস্কো।

সের্গেই স্ক্রিপাল এক সময় রুশ গোয়েন্দা বিভাগে কাজ করতেন। কিন্তু ব্রিটেনের হয়ে কাজ করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হন তিনি। পরে গুপ্তচর বিনিময় আইনের আওতায় তিনি মুক্তি পান এবং ব্রিটেনে বসবাস শুরু করেন।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply