অহেতুক উইকেট বিলিয়ে ম্যাচ হারলো বাংলাদেশ

|

দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটিং ব্যর্থতার আরেকটি নিদর্শন দেখালো টাইগাররা। ১৯ ওভারেই অলআউট হলে গেলো ১২২ রানে। ম্যাচ হারলো ৪৫ রানে।

এর আগে, আফগানদের দেয়া ১৬৮ রানের লক্ষ্যে নেমে শুরুতেই নির্ভরযোগ্য ওপেনার তামিম ইকবালকে হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। এরপর দলীয় ২১ রানে নবীকে তুলে মারতে গিয়ে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও ফিরিয়ে গেলে বিপাকে পড়ে টাইগাররা। সেখান থেকে মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের ব্যাটে ভর করে ভালোই এগাচ্ছিল টাইগাররা। কিন্তু হঠাৎই শুরু হলো এলোমেলো ব্যাটিং। ফাইন লেগে মোহাম্মদ নবীর বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে জীবন পাওয়ার পরও যেন শিক্ষা নিলেন না মুশফিক। রশিদ খানের ওভারে রির্ভাস শট খেলতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে দিলেন। অবশ্য, তার আগেই নবীর ওভারে বোলারকে ধোঁকা দিতে গিয়ে নিজেই বোকা বনলেন লিটন দাশ। ২০ বলে ৩০ রান করে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে গেলেন। অথচ, কী দারুণ খেলছিলেন তিনি।

আইসিসি’র টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমান বিশ্বের সেরা বোলার রশিদ খান। অবশ্য, তার ঘূর্ণি জাদু র‌্যাঙ্কিংয়ের ধার ধারে না। শচীনের মতো কিংবদন্তী এই আফগান বোলারকে বর্তমান বিশ্বের সেরা তকমা দিয়েছেন। আর তাকেই কিনা পাড়ার বোলারের মতো খেলতে গেলেন অভিজ্ঞ মুশফিক। পরাস্ত হয়ে উইকেটও বিলিয়ে দিলেন। পরের বলেই সাব্বির তো রশিদের বলই বুঝতে পারলেন না। অলস ভঙ্গিতে ব্যাট ঘুরালেন। ব্যাট ফাঁকি দিয়ে বল গিয়ে লাগলো পায়ে। আম্পায়ার আঙ্গুল তুলতে দেরি করেননি আর।

এরপর,মাহমুদুল্লাহ-মোসাদ্দেক কিছুক্ষণ টেস্টের মেজাজে ব্যাট করলেন। ততক্ষণে ম্যাচ থেকেও ছিটকে গেছে বাংলাদেশ। ১৭-তম ওভারে রশিদ খানের বলে মোসাদ্দেক ফিরে গেলে আসা-যাওয়ার মিছিল শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত ১৯-তম ওভারে ১২২ রানে থেমে যায় বাংলাদেশ। ৩ ওভারে ১৩ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যান দ্যা ম্যাচ হয়েছেন আফগান জাদুকর রশিদ খান।

দেরাদুনের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়াম এক বড় অস্বস্তিই উপহার দিলো টাইগারদের।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply