সৌদি অর্থের কাছে বিক্রি হয়ে গেছে ফ্রান্স: তুরস্ক

|

খাশোগি হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে বিবাদে জড়িয়েছে ফ্রান্স-তুরস্ক। প্যারিসের অভিযোগ, ইস্যুটিকে স্বার্থ হাসিলে ব্যবহার করছে আঙ্কারা। তুরস্ক হত্যাকাণ্ড সংক্রান্ত অডিও টেপ পাঠানোর দাবি করলেও তা হাতে পৌঁছায়নি বলে দাবি ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। প্রতিক্রিয়ায় তুরস্কের পাল্টা অভিযোগ, সৌদি অর্থের কাছে বিক্রি হয়ে গেছে ফ্রান্স। এদিকে, রিয়াদ সফরে বাদশাহ সালমানের সাথে বৈঠকে খাশোগি হত্যা এবং ইয়েমেনে বিমান হামলা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার দেড় মাস হতে চললেও, কুল কিনারাই হয়নি রহস্যের। উল্টো ক্রমেই জটিল হচ্ছে পরিস্থিতি। সবশেষ কথার লড়াইয়ে জড়িয়েছে তুরস্ক- ফ্রান্স।

খাশোগি হত্যা সংক্রান্ত অডিও টেপ এবং তদন্তে পাওয়া নানা তথ্য ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫ দেশকে সরবরাহ করে তুরস্ক। তবে প্যারিসের দাবি কোনো তথ্য-প্রমাণ তাদের হাতে এসে পৌঁছায়নি। ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিযোগ, এই ঘোলাটে পরিস্থিতির সুযোগে নিজের স্বার্থ উদ্ধার করছে আঙ্কারা।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যাঁ ড্রায়ান বলেন, এ ধরণের কোনো প্রতিবেদন বা তথ্য আমাদের হাতে এসে পৌঁছায়নি। হতে পারে তুরস্কের দাবি অসত্য। এমনও হতে পারে খাশোগি হত্যাকাণ্ডে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অস্থিরতার সুযোগ নিয়ে দেশটি নিজ স্বার্থ হাসিলেও সচেষ্ট।

ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বক্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে আঙ্কারা। সৌদি অর্থের কাছে বিক্রি হয়ে গেছে ফ্রান্স, অভিযোগ তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুক কাভাসোগলুর। তিনি বলেন, ফ্রান্সের সাথে তদন্ত প্রতিবেদন বিনিময় করেছি। হত্যাকাণ্ড সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্যও তাদের দেয়া হয়েছে। এরপরও প্যারিসের এমন মন্তব্য খুবই দু:খজনক। অবস্থা এমন যে ফ্রান্স যদি বলে বসে যে, সেখানে কোনো হত্যাকাণ্ডই ঘটেনি, তবুও আমরা অবাক হবো না। অর্থের কাছে বিক্রি হলে এমনটাই ঘটা স্বাভাবিক।

এদিকে, সৌদি সফররত ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী, খাশোগি ইস্যুতে উদ্বেগ জানিয়েছেন বাদশাহ সালমানের কাছে। ইয়েমেনে সৌদি হামলা নিয়েও কথা বলেন জেরেমি হান্ট।

তিনি বলেন, সৌদি আরবের কৌশলগত অংশীদার হিসেবে খাশোগি ইস্যুতে যুক্তরাজ্য উদ্বিগ্ন। এমন ঘটনা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। হত্যাকাণ্ডে যেই জড়িত থাকুক না কেন, তাকে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। আর ইয়েমেনে লাখো লাখো মানুষ অমানবিক জীবন যাপন করছে। সেই পরিস্থিতি এড়িয়ে গেলেও চলবে না।









Leave a reply