ছেলে খোঁজ নেয় না, ৭০ বছর বয়সেও বিক্রি করেন ঝালমুড়ি

|

ঝিনইদহ প্রতিনিধিঃ

সন্তানদের লালন পালন করতে বাবা-মা জীবনের আয়ের সর্বস্ব ব্যয় করেন। কিন্তু সেই সন্তানই যদি বৃদ্ধ বয়সে পিতা-মাতার ভরণ পোষণের দায়িত্ব না নেয়। তা হয় দুঃখজনক। এরকম ঘটনা ঘটেছে   ঝিনাইদহের শৈলকুপায়।  বৃদ্ধ বয়সে নিজেদের সংসার চালাতে গিয়ে ঝালমুড়ি বিক্রি করছেন আব্দুল জলিল শেখ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার নাদপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জলিল শেখ।  প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন বাজারে “এইইই ঝালমুড়িড়ড়’’ বলে হাক ছাড়েন তিনি । বিভিন্ন ওলি গলি ঘুরে ঘুরে যা রোজগার হয় তাই দিয়েই কোন রকমে চলে তার সংসার । বয়স ৭০ এর কাছাকাছি হলেও পায় না কোন সরকারি অনুদান । দেহের ভার বইতে না পারলেও সংসার চালানোর তাগিদে রোজ তাকে শহরের বিভিন্ন ওলি গলি ঘুরে ঘুরে হাক ছেড়ে ঝালমুড়ি বিক্রি করতে হয় ।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দুই মেয়ে এক ছেলের পিতা তিনি । ছেলে তার ভরণ পোষণ এর দায়িত্ব নেয়নি যার ফলে বৃদ্ধ বয়সেও তাকে এই কঠিন কর্ম করে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে ।

আব্দুল জলিল শেখ জানান , রোজ ২০০-২৫০ টাকা রোজগার করি , এই দিয়েই চলে কোন রকমে সংসার । বয়সের ভার আর সহ্য করতে পারছি না । এসব থেকে যে কবে মুক্তি পাব সেটা আল্লাহই জানে । যদি একটা বয়স্ক ভাতার কার্ড থাকতো তবে একটু উপকার হতো । অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে থাকলেও দেখার কেউ নেই, ঠিকমত ঔষুধও কিনে খেতে পারি না ।আমার ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস ।









Leave a reply