নতুন প্রজন্মকে বাঁচাতে যে কোন মূল্যে মাদক নির্মূল করা হবে: স্বরাষ্টমন্ত্রী

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি বলেছেন, ‘মাদকের আগ্রাসন থেকে শিক্ষার্থীসহ তরুণ প্রজন্মকে বাঁচাতে হবে। তরুণ প্রজন্ম আমাদের সম্পদ। এই সম্পদ তথা তাদের মেধাকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে আমাদের মাদক নির্মূল করতে হবে। দেশ থেকে মাদক নির্মূল করাই বর্তমানে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। তাই যে কোন মূল্যেই মাদকদ্রব্য ব্যবহার বন্ধ ও মাদক ব্যবসায়ীদের চিরতরে নির্মূল করা হবে’।

রবিবার (২৪ মার্চ) দুপুরে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কালিরবাজার এলাকায় জেলা পুলিশের আয়োজনে মাদক বিরোধী ও সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এরআগে, ফুলছড়ি থানার নব-নির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। উদ্বোধনের আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফুলছড়িতে পৌঁছলে তাকে ফুল দিয়ে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। তাই মাদক ব্যবসা ছেড়ে অন্য ব্যবসা করতে হবে মাদক ব্যবসায়ীদের। মাদক সেবী ও ব্যবসায়ীদের সুস্থ পথে ফিরে আসতে বিভিন্ন চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্বেচ্ছায় মাদক ব্যবসায়ীরা ব্যবসা ছেড়ে ফিরে আসলে তাদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার কথাও জানান তিনি। দেশকে মাদকমুক্ত করার আন্দোলনে জনগণের সহযোগিতা চান তিনি। অন্যথায় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর পরিণতি হবে বলেও সর্তক করেন মন্ত্রী। এসময় মাদকের ভয়াবহতার কথা তুলে ধরে শিক্ষার্থীদের তথা যুবসমাজকে মাদকের আগ্রাসন থেকে দুরে থাকতে এবং নিজেদের রক্ষার আহ্বানও জানান মন্ত্রী’।

মাদক বিরোধী সুধি সমাবেশে গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন এলাকার ৭৪ জন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেছেন। অন্ধকার পথ ছেড়ে আলোর পথে আসায় আত্মসমর্পণকারী মাদক ব্যবসায়ীদের হাতে ফুল দিয়ে বরণ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি, গাইবান্ধা-১ আসনের এমপি ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্রচার্য্য, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন, জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান। এছাড়া সমাবেশে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের দপ্তরের কর্মকর্তা, নব নির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আ’লীগ এবং অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।









Leave a reply