চলন্ত বাসে নার্সকে গণধর্ষণ ও হত্যায় আটক ৫

|

কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে নার্সকে গণধর্ষণ ও হত্যায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে আরও ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ নিয়ে আটকের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫ জনে।

এ ঘটনায় গতরাতে বাজিতপুর থানায় মামলা করেছেন নিহতের বাবা। আসামি করা হয়েছে স্বর্ণলতা বাসের চালক নুরুজ্জামান, হেলপার লালন ও আল-আমিনকে।

এদিকে, সিভিল সার্জন জানিয়েছেন ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলমত পাওয়া গেছে। সোমবার রাত এগারোটার দিকে বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর এলাকা থেকে শাহিনূর আক্তার তানিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

স্বজনরা জানায়, তানিয়া ঢাকার ইবনে সিনা মেডিকেলে নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরিবারের সাথে প্রথম রোজা রাখতে সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে কটিয়াদী’র গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন তিনি। বাসে ওঠার পর পরিবারের সাথে বেশ কয়েকবার কথাও হয় তার। স্বজনদের ধারণা, পিরিজপুর এলাকায় আসার আগেই বাসের সব যাত্রী নেমে গেলে চালকসহ কয়েকজন তানিয়াকে ধর্ষণ করে। পরে হত্যা করে তার লাশ ফেলে দেয়।









Leave a reply