প্রতিবন্ধীকে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

|

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি ভিডিও যেখানে দেখা গেছে, এক যুবকের হাত-পা বেঁধে বেধড়ক পেটাচ্ছে গ্রামবাসী। আর তা দাঁড়িয়ে দেখছেন আশপাশের মানুষ।

জানা গেছে, যুবককে নির্যাতনের এই ঘটনাটি ঘটেছে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার দিকে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে দঁড়িজাহাঙ্গীপুর গ্রামে।

নির্যাতিত যুবক মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে। তার নাম মোশাররফ হোসেন (১৯)। তিনি তাড়াইল উপজেলার সাচাইল সদর ইউনিয়নের শামুকজানি গ্রামের কেন্তু মিয়ার ছেলে।

চুরির অভিযোগ এনে ওই মানসিক ভারসাম্যহীনকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে স্থানীয় এক প্রভাবশালী পরিবার।

নির্যাতনে গুরুতর আহত মোশাররফ হোসেনকে চিকিৎসার জন্য তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার বিবৃতি দিয়ে এলাকাবাসী জানায়, মোশাররফ আজ সকালে একই ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী দঁড়িজাহাঙ্গীরপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত কাস্টম অফিসার মোখলেছুর রহমান খান শাহানের বাড়ির মূল দরজা খোলা দেখতে পেয়ে বাড়িতে ঢুকে পড়ে। পরে ঘরে ঢুকে ছাদে চলে যায় সে।

শাহানের পরিবার মোশাররফকে দেখতে পেয়ে তাকে ধরে নিচে নিয়ে আসে। পরে শাহানের নির্দেশে বাড়ির পাশের গুলবাগ জামে মসজিদের সামনে খোলা মাঠে মোশাররফের হাত-পা বেঁধে জনসম্মুখে অমানবিক নির্যাতন চালায়। এই নির্যাতনে শাহানকে সহযোগিতা করেন একই গ্রামের সাজ্জাত হোসেন হিটলারসহ অন্যান্যরা।

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় প্রতিবাদ ও সমালোচনার ঝড় উঠেছে। ফেসবুকেও ছড়িয়ে পড়েছে নির্যাতনের সেই ভিডিও।

এদিকে খবর পেয়ে তাড়াইল থানার ওসি মো. মুজিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরির্দশন করে নির্যাতনকারী সাজ্জাদ হোসেন হিটলারকে আটক করেন।

এ ব্যাপারে ওসি মো.মুজিবুর রহমান বলেন, নির্যাতনকারী সাজ্জাত হোসেন হিটলারকে গ্রেফতার করেছি।

মোশাররফের পরিবার থেকে এখনও লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি জানিয়ে ওসি বলেন, এজাহার দেয়ার জন্য নির্যাতের শিকার যুবকের আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে আমি নিজ উদ্যোগে যোগাযোগ করছি। তাদের পক্ষ থেকে এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনার মূলহোতা অবসরপ্রাপ্ত কাস্টম অফিসার মোখলেছুর রহমান খান শাহানের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।









Leave a reply