ছাত্রলীগের কমিটিতে বাবা, একাধিক বিবাহিত ও ছাত্রদল কর্মীরা!

|

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

সন্তানের বাবা সহ একাধিক বিবাহিত ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের দিয়ে পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের ২০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণার প্রতিবাদে পদবঞ্চিত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে।

আজ বেলা সোয়া চারটার দিকে পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। এর আগে সরকারী কলেজ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রেসক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়।

বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গতকাল রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত ২০১ সদস্য বিশিষ্ট একটি পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে, যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পায়। ওই কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে ৫১ জন এবং যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ জন সদস্য স্থান পেযেছে।

বক্তাদের অভিযোগ, ২০১ সদস্যের কমিটিতে এক সন্তানের জনক রয়েছেন দুইজন তারা হলেন- সহ-সভাপতি পদে আতিকুজ্জামান নোমান হাওলাদার এবং একই পদে আল-আমিন শিকদার। এছাড়া বিবাহিত রয়েছেন তিনজন। তারা হলেন- সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান রিফাত খান, সহ-সভাপতি বেল্লাল শরিফ এবং জহিরুল ইসলাম জুয়েল।

এছাড়া ওই কমিটিতে ছাত্রদল থেকে মূল্যায়িত হয়েছেন পাঁচজন। তারা হলেন- সহ-সভাপতি মোঃ গোলাম রসুল সাগর, সহ-সভাপতি কাইউম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রিয়াদ হোসেন, সহ সম্পাদক মোঃ আশিকুর রহমান উজ্জল এবং তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক মোঃ আমিনুল ইসলাম অনিক। এছাড়া আরো অনেকে রয়েছে বিবাহিত ও ছাত্রদলের নেতাকর্মী যারা ছাত্রলীগের কমিটিতে স্থান পেয়েছে।

বক্তারা আরো বলেন, এই পূর্নাঙ্গ কমিটিতে ত্যাগী পরিশ্রমী ও মেধাবী নেতাকর্মীদেরকে মূল্যায়ন করা হয়নি।

মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পদবঞ্চিত ছাত্রলীগ নেতা মোঃ মেহেদি হাসান বাদল, আলামিন শিকদার এবং আদনান তুহিন।

এ ব্যপারে জানতে চাইলে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ হাসান শিকদার সাংবাদিকদের জানান, যারা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে তাদের দাবী অযৌক্তিক। তাছাড়া বিবাহিত ও ছাত্রদলের বিষয়ে যদি কেউ প্রমাণ দিতে পারে তবে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, যারা ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিতে পারে তারা ছাত্রলীগের কেউ না।









Leave a reply