সেলের মধ্যেই মোবাইল ফোন ও ফ্রিজ পাচ্ছে ব্রিটেনের কয়েদীরা

|

অপরাধী তার অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী সাজা পাবে এটাই নিয়ম। কারা আইনটাও এভানেই প্রণীত। কিন্তু যুগে যুগে দেখা যাচ্ছে অপরাধী সংশোধনে কঠোরতার চেয়ে অনেক বেশি কার্যকর ভালবাসা ও সহযোগিতা। তাই প্রতিদানমূলক ব্যবস্থা ছেড়ে দেশে দেশে সবাই এখন ঝুকছে সংশোধণমূলক ও সহযোগিতামূলক ব্যবস্থা। এবার এই সফট জাস্টিসের পথে এগুলো ব্রিটেন।

ব্রিটিশ সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, কয়েদীদের সংশোধনে অনুপ্রাণিত করতে কারাগারে সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বড় আকর্ষণ, মোবাইল ফোন ব্যবহারের সুযোগ। তবে কয়েদীরা কথা বলতে পারবেন পরিবারের সদস্য, আত্মীয় বা বন্ধুদের অনুমোদিত কিছু নাম্বারে। এক কারা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মহিলা কয়েদীরা এতে বিশেষ উপকৃত হবেন।

সুবিধা আরও আছে। আসামিরা পছন্দমত খাবার খেতে পারবেন, নিতে পারবেন ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্ট। ঘুমানোর জন্য পাবেন নরম বালিশ তোষক। এমনকি রেফিজারেটর বা ফ্রিজ ব্যবহারের সুযোগও মিলবে।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের ১০টি কারাগারে এরই মধ্যে এই সুযোগ সুবিধা চালু করার সমস্ত প্রস্তুতি শেষ। মোবাইল ফোনে কথা বলার সুবিধা ইতিমধ্যে কিছু কারাগারে চালু হয়েছে।

তবে গণহারে সব কয়েদীকেই দেয়া হচ্ছে না এসব সুযোগ সুবিধা। এক্ষেত্রে লাল, রুপালী ও সোনালী- এই তিন ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে আসামিদের। ব্রিটেনের প্রধান কারা পরিদর্শক জানিয়েছেন, এই শ্রেনিবিভাগ আসামিদের ভাল ব্যবহার করতে উৎসাহিত করছে। সবাই লাল ক্যাটাগরি দিয়ে শুরু করবে। ভাল ব্যবহার করলে রুপালী, আরও সংশোধিত হলে সোনালী। সোনালী পর্যায়ের আসামিরা পাবেন নরম বালিশ আর ব্যক্তিগত ফ্রিজ ব্যবহারের সুযোগ।









Leave a reply