এবার পুরুষের গর্ভনিরোধক পিল

|

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বাজারে আসছে পুরুষের গর্ভনিরোধক ওষুধ। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য সান’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরুষের গর্ভনিরোধক পিল না হয়ে অন্য নেসাল স্প্রে বা সাবস্কিন ইমপ্ল্যান্টের মতো ওধুষ বাজারে ছাড়া হতে পারে।

খবরে বলা হয়েছে, অ্যান্ড্রোজেন (পুরুষ হরমোন) ও প্রোজেস্টিন, এই দুটির কাজ একত্র করে পুরুষ গর্ভনিরোধ। এবং এর ফলে স্পার্ম কাউন্ট নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে এ ওষুধের ফলে পুরুষের কোনো সমস্যা ভোগার আশঙ্কা নেই।

জেনেভার ‘ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশন’ এর পক্ষ থেকে তৈরি করা হয়েছে পুরুষদের এই গর্ভনিরোধক। প্রায় এক বছর ধরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছেন সেখানকার গবেষকরা। ৩২০ জন পুরুষের ওপর পরীক্ষা চালানো হয় এই এক বছরে। এবং তার মধ্যে ৯৬ শতাংশ যুগল সফল হয়েছে এই পদ্ধতিতে।

প্রসঙ্গত, এই গর্ভনিরোধক পুরোপুরি কার্যকর হলেও, গবেষকরা জানিয়েছেন যে আরও কিছু কাজ এখনও বাকি রয়েছে। এর ব্যবহারে কতওটা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে, তা সঠিকভাবে এখনও নির্ধারণ করা হয়নি।

তবে বিজ্ঞানীদের মতে, খুব বেশি হলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যেই বিশ্ববাজারে পাওয়া যাবে পুরুষ গর্ভনিরোধক পিল বা জেল বা স্প্রে।

অপরদিকে শিকাগোতে এন্ডোক্রাইন সোসাইটির বার্ষিক সম্মেলনে গবেষণায় উঠে আসা এই তথ্য প্রকাশ করে ‘ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের’ গবেষকরা। তাঁরা বলেছেন, পুরুষদের জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল তৈরি করেছে। পিলটির নাম ডাইমিথেন্ড্রোলোন আনডেকানোয়েট বা (ডিএমএইউ)। এটি নিরাপদে একমাস ধরে প্রত্যেকদিন খাওয়া যাবে।

পুরুষের জন্য জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলের গবেষণা অনেক দিন ধরে হয়ে আসলেও তা বরাবরই বাধার সম্মুখীন হয়েছে। দেখা গিয়েছে, এই ধরনের কিছু পিল যকৃতে প্রদাহ সৃষ্টি করে। আবার কিছু পিলের কার্যকারিতা তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যায়, ফলে দিনে দুইবার করে তা সেবনের প্রয়োজন পড়ে।









Leave a reply