ঘুষ আর টিআর কাবিখার টাকার ভাগ নিয়ে বড় হতে চাই না: গণপূর্তমন্ত্রী

|

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, আমি দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে বড় হতে চাই না। আমি নির্বাচনের আগে বলেছি, এখনও বলি আমি চাকরিতে বা অন্য কোনো ক্ষেত্রে ঘুষ বাণিজ্য বা টিআর কাবিখার টাকার ভাগ নিয়ে অর্থ উপার্জন করতে চাই না। রাজনীতি করে টাকা নেয়া মানে আমি দুর্বৃত্তের নীতি মনে করি।

রোববার দুপুরে উপজেলার বাকসী রাজলক্ষ্মী শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ফাউন্ডেশনের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এসব কথা বলেন।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, আমি পৃথিবীতে একমাত্র আল্লাহ ও তারপরে আমার নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া অন্য কাউকে ভয় পাই না। স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, আমার দরজা নেতাকর্মীদের জন্য সব সময় খোলা আছে।

তিনি বলেন, এ দেশটি কোনো একক সম্প্রদায়ের না। মায়ানমারে বৌদ্ধরা সেখানে মুসলমানদের পুড়িয়ে ও নির্যাতন করে হত্যা করেছে তার মানে বিশ্বের সব বৌদ্ধরা হত্যাকারী বা খারাপ লোক না। গুটিকয়েক বিপথগামী সেনা কর্মকর্তা আমার প্রিয় নেতা জাতির পিতাকে হত্যা করেছিল। তার মানে সেনাবাহিনী এর জন্য দায়ী নয়। বিশেষ লোক খারাপ হলে ওই সম্প্রদায়ের সব লোককে খারাপ বলা যাবে না।

তিনি বলেন, গত জোট সরকারের সময় ২০০১ সালে এই নাজিরপুরে হিন্দুদের ওপর ব্যাপকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। এদেশের হিন্দুরা কারো অনুকম্পায় বাস করেন না।

এ সময় আগের এমপিকে ইঙ্গিত শ ম রেজাউল করিম বলেন, সে সময় এখানে ব্যাপক ঘুষ, দুর্নীতি ও নিয়োগ বাণিজ্য হয়েছে। কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নান্না মিয়ার কাছ থেকে ৮ কোটি টাকার জাহাজ নিতে চাইলেও তা তিনি পারেননি।

রাজলক্ষ্মী শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ফাউন্ডেশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুকুমার মৃধার সভাপতিত্বে রাজলক্ষ্মী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে শেখমাটিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মাস্টার মো. কামরুজ্জামান মতিয়ারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জন হালদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোশারেফ হোসেন খান, সোনালী ব্যাংকের ডিএমডি পরিতোষ তরুয়া, কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আতিয়ার রহমান চৌধুরী নান্নু, রাজলক্ষ্মী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মিলন মন্ডল, ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান আতিয়ার প্রমুখ।

এ সময় ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মো. আজাদ, এলজিইডির পিরোজপুর জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী সুশান্ত রঞ্জন রায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোজি আক্তার, উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।









Leave a reply