স্বামী বনির কারণে মনোবেদনায় ভুগছিলেন শ্রীদেবী

|

দুবাইয়ের একটি হোটেলে শ্রীদেবীর মৃত্যুর পর মরদেহ ভারতে নিয়ে আসতে কম ঝক্কি পোহাতে হয়নি ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও নামকরা সব ভারতীয়দের। ময়না তদন্ত তো করা হয়েছিলই, কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদসহ আটক করা হয়েছিল শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুরের পাসপোর্টও।

ওই কয়েক দিন গণ মাধ্যম ও মানুষের মুখে মুখে আলোচনার বিষয় বস্তু ছিল শ্রীদেবীর মৃত্যু, সবাই কেন একে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে ঘটা মৃত্যু বলে মেনে নিতে পারেনি। শেষ অবধি মামলা গুটিয়ে রহস্য ঘেরা সেই জল্পনা-কল্পনায় বলতে গেলে জল ঢেলে দেয় দুবাই পুলিশ।

কিন্তু সেই জল্পনা-কল্পনার বিষয়টি আবারও সামনে চলে এসেছে শ্রীদেবীর কাকা বেনুগোপাল রেড্ডির কথায়। তেলেগু নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “আমরা জানি, চলচ্চিত্র প্রযোজনা ব্যবসার বনি কাপুর প্রচুর টাকা হারিয়েছে। ওই ক্ষতি পোষাতে শ্রীদেবীর সম্পত্তি বিক্রি করতে হয়েছিল।”

বেনুগোপাল রেড্ডি বলেন, “এই পৃথিবী সবার জন্য তার মুখে সব সময় হাসি লেগে থাকলেও তাদের মনে ভীষণ মর্মবেদনা ছিল।”

শ্রীদেবীর কাকা বলেন, “বনি’র প্রযোজনা করা একটি সিনেমা কখনওই আলোর মুখ দেখেনি, এবং তারা খুব অর্থ কষ্টের মধ্য দিয়ে গিয়েছিল। ঋণের ভারে জর্জরিত জীবনকে স্বাভাবিক করতে শ্রীদেবী তার সম্পত্তি বিক্রি করেছিল। এবং শ্রীদেবীর পুণরায় সিনেমায় আসার পেছনে এই অর্থ সংকটই ছিল মূল কারণ।”

এখন দেখার বিষয় এ নিয়ে বনি তথা কাপুর পরিবার কি বলে?

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply